গল্পঃ “পৃথিবীর সব থেকে গোপন রহস্য”

হজ্জ হচ্ছে সকল রহস্যের সমাধান। হজ্জ মুসলিম জন্য এবং তা হচ্ছে সকল বিপদ থেকে রক্ষা পাওয়া এবং আল্লাহর পক্ষ হতে সাহায্য পাওয়ার একমাত্র উপায়। যারা অবিশ্বাসী বা আল্লাহর উপর যাদের বিশ্বাস নেই, তাদের ধ্বংস পুর্বেও ছিলো এবং এখনো আছে। আমার নানাজান কে আমি দেখিনি কিন্তু আমার আম্মু বা মায়ের মুখে শুনেছি, তিনি ছিলেন ভাষাবিদ ডক্টর মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ এর মতো দেখতে। সৌভাগ্যক্রমে ভাষাবিদ ডক্টর মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ এর লেখা বাংলা ভাষা ও ব্যকরন বই পড়ার সৌভাগ্য আমার হয়েছে। সে যাইহোক, এই ভাষার মাঝেই আছে পৃথিবীর সকল রহস্যের সমাধান। অবিশ্বাসীরা তাওরাত, যাবুর, ইনজিল এবং কোরআন এর অর্থ উদ্ধারে মগ্ন ছিলেন। অর্থ মানে তারা বোঝে টাকা কে। তারা বরাবরই শুধু অর্থলোভী ছিলো বলে তাদের করুণ দশা। হজ্জ, হজ্জে যাও, যা হজ্জে এইসব পুণ্য বা ছোয়াবের কথা বা বাক্য এবং এসবের থেকে উৎপত্তি হয়েছে জাহাজ সহ বহু প্রযুক্তি ও বিজ্ঞান। এসবের আরো একটা কারণ ছিলো আল্লাহ কে খুজে পাওয়া, যিনি সবকিছু সৃষ্টি করেছেন। তার সৃষ্টির সেরা জীব হচ্ছে মানুষ এবং প্রত্যেক মুসলিম মানুষের জন্য তিনি সৃষ্টি করেছেন জান্নাত এবং জাহান্নাম। জাহান্নামের পথযাত্রীরা হচ্ছে অমুসলিম। তারা প্রতিবার আল্লাহকে Challenge করতো। তাদের ধারনা ভিন্নছিলো এবং তারা ভাবতো ইবলিস কিংবা শয়তান তাদের বাচাবে বা তাদের প্রভু। তাই তারা আল্লাহর সৃষ্টিকে ভুল ভাবতো। আল্লাহ সবার শেষে বিচার করবেন ইবলিশ বা শয়তানের। কাফেররা হচ্ছে ইবলিশ বা শয়তান এর পূজারি। তাদের ধারণা কাফেরেই সব! সে যাইহোক, টাইটানিক হচ্ছে অনেক ইতিহাসের মধ্যে একটি ইতিহাস। তারা হচ্ছের পরিবর্তে যা হজ্জ, হজ্জে যাও এসব ছোয়াবের বাক্যগুলো থেকে জাহাজ এর মাধ্যমে প্রমান করতে চেয়েছিলো যে শয়তান বা ইবলিশ এবং কাফেররাই সেরা! তারা জানতে পেরেছিলো যে ইবলিশ এর অন্যতম বাসস্থান হচ্ছে সমুদ্রের গভীরের মাঝে। হয়তো এটা অনেকে জানে বা অনেকে জানে না। টাইটানিক ধ্বংস এর অন্যতম কারন হচ্ছে, ice burg. এই ice burg শব্দের মাঝে লুকিয়ে আছে রহস্য। IS বরফ। বা IS বর off. এখন কথা হচ্ছে এই IS এর রহস্য পৃথিবীর অন্যতম রহস্য। কেউ বলে IS মানে ইসলামিক স্টেট আবার কেউ বলে IS মানে International server space কিন্তু IS বলতে আসলে বোঝানো হয়েছে Israel কে। Israel এর সংক্ষিপ্ত নাম হচ্ছে IS এবং IS বলতে ইহুদি এবং কাফেরদের চিহ্নিত করা হয়। টাইটানিক নামের যে ছায়াছবি বা মুভি এর কাহিনি যা যুক্ত করা হয়েছে, তা আসলে মুসলিমদের ধ্বংস এর একটি সুত্র। উদ্দেশ্য, হজ্জযাত্রীদের বিমুখ করা এবং বৈজ্ঞানিক ভাবে তাদের হত্যা করা। হ্যা, তারা কাফের এবং শয়াতানের অনুসারী। সব থেকে মজার ব্যাবার হচ্ছে, IS কাফের, শয়তান ইত্যদি, এসবও আল্লাহ তৈরী বা সৃষ্টি। সে যাইহোক, তাদের শেষ রক্ষাকারী সমুদ্রের মাঝে বাস করে। টাইটানিক এ প্রধান চরিত্র আল্লাহর সৃষ্টি কোন এক নবী বা ম্যাসেঞ্জার কে দিয়ে তারা তার সন্ধান চালায়। নবী বা ম্যাসেঞ্জার মানেই হচ্ছে সেই সব ব্যাক্তি যারা আল্লাহর বানী বা বাক্য তাদের মাধ্যমে প্রকাশ হয়। জান্নাতে যাওয়ার জন্য যেমন নবী রসুল আছে বা ছিলো ঠিক সেরকমেই জাহান্নামে যাওয়ার জন্যও তাদের বার্তা বাহক আছে। তারা যখন হজ্জ কে Challenge করে কাফেরদের বা শয়তানের কাছে আশ্রয় চেয়েছিলো, আল্লাহ তখন তাদের ইচ্ছেও পুরন করেছেন। ইবলিশ যেমন ভালো কাজ করতে করতে শেষে মন্দ পথ বেছে নিয়েছিলো, ঠিক একই ভাবে তারা আল্লাহর বানী থেকে তৈরী করে তাদের প্রভু ইবিস ভেবেছিলো। যখনেই তারা আল্লাহর কাজ করতে করতে শেষে গিয়ে বিকল্প ভেবেছিলো, ঠিক একই ভাবে আল্লাহ সুন্দরভাবে তাদের ডুবিয়ে দিয়েছিলেন। টাইটানিক শুধুমাত্র একটি গল্প কিন্তু এটাও একটি ধর্ম অনুসারে সৃষ্টির গল্প। এই গল্প প্রমান করে ইবলিশের অস্তিত্ব । এই গল্প প্রমান করে হজ্জের অস্তিত্ব । এই গল্প প্রমান করে IS বা ইজরাইলের অস্তিত্ব । তাদের টাইটানিকের গল্পের মাধ্যমে তারা যখন আল্লাহকে না মেনে ইবলিশ, শয়তান এবং কাফেরদের অনুগ্যতকে স্বীকার করেছে, ঠিক তখনেই আল্লাহ তাদের প্রতি রহমত উঠিয়ে দিয়ে তাদের পাঠিয়েছেন সমুদ্রের মাঝে সেখানে শয়তান বা ইবলিশ বাস করে। কিন্তু, জীবন এবং আত্মা কে তুলে নেয়া হয়েছে জাহান্নামে প্রেরণের জন্য। টাইটানিক এর গল্প হচ্ছে কাফের সেরা সৃষ্টি বা তাদের লিমিট এতোটুকুই। এখন তারা একই গল্প বানায় এবং একই ভাবে মারা যায়। তাদের উদ্দেশ্য আসলে মুসলিম হত্যা, কিন্তু তারা নিজেরাই মরে। এবার আসি IS, Ice burg এবং Israel ও কাফের দের কাছে। Israel এবং আজরাইল হচ্ছে মালাকুল মউত এর বিকল্প। তাদের মতে আল্লাহর শ্রেষ্ট ফেরেস্তা এর মধ্যে মালাকুল মউত বা আজরাইল যে জান কবজ করে। ঠিক সেরকম তারা একটি স্টেট বা গোষ্টি তৈরী করে যা আসলে ইজরাইল । জানলে অবাক হবেন, এসবও আল্লাহর সৃষ্টি । অই যে বললাম যে, ওদের দৌড় টাইটানিক। টাইটানিক যেভাবে Ice burg এর সাথে ধাক্কা খেয়ে ডুবে ছিলো, ঠিক একই ঘটনা ওদের সাথে বারবার ঘটে। কারণ, তাদের জ্ঞান এর নির্দিষ্ট একটা সীমা আছে। তারা একই ভাবে মুসলিম দের জ্ঞান নির্দিষ্ট সীমায় ফেলার চেষ্টায় আছে। এসব দেখছি হাসছি। সে যাইহোক, IS বা Ice burg ধাক্কা খাওয়ার ফলে যখন বুঝলো যে, হ্যা আল্লাহ তো মারলো এদের বা আল্লাহর হুকুমেই তো এসব ঘটলো! তখন তারা আল্লাহ কে মারার এবং নবী রাসুল দের অনুসারি এবং মুসলিমদের মারার জন্য ক্রোধে উঠে পড়ে লাগলো। কিন্তু, আবাক লাগে আল্লাহর সৃষ্টির কথা ভাবলে। মুসলিম হজ্জ যাত্রীদের বা যাদের ইচ্ছে হজ্জ করার, তাদের শয়তানের অনুসারী বা ইবলিশ ও কাফের রা তাদের পথভ্রষ্ট করার জন্য একইভাবে ফাদ পেতে রেখেছে। বর্তমান Ice burg কোথায়? হ্যা আছে, সেটি হচ্ছে ইজরাইল বা ইহুদের একটি চক্র। আসলে তারা নিজেদের বাঁচার জন্য মুলিমদের পিছে লুকিয়েছে। বিশ্বাস হচ্ছে না! আচ্ছা প্রমান করে দিচ্ছি “Fiverr” নামক একটি Freelancer marketplace আছে যা আসলে তেল আভিভ এ অবস্থিত। তারা প্রযুক্তগত দিক দিয়ে নিজেদের আজড়াইল এর অবস্থানে বসিয়েছিলো। আত্মা কে কবজ করার রহস্য বা ক্ষমতা পেয়েছিলো বলে তাদের ধারনা। কিন্তু সত্যি তো এটাই যে, আল্লাহর পক্ষ হতে একটি Warning ছিলো মাত্র। Freelancer বা IS বা ইহুদি বা Israel তাদের কব্জায় বন্দী যতোদুর সম্ভব কোটি কোটি বা হাজার হাজার মুসলিম যারা আসলে হজ্জ যাত্রীদের মধ্যে প[রে। তাদের লুট করার জন্য এবং হত্যা করার জন্য কাফেরদের তৈরী একটি প্রতিষ্ঠান। তারা কাফের দের অপেক্ষায় এখনো। কিন্তু কাফেরা সমুদ্রের গভীরে যেখানে মানুষ বেচে থাকতে পারেনা। হ্যা এর শেষ উত্তর বা সমাধান তারা পাবে, যদি তারা ইসলাম ধর্ম বা মুসলিম ধর্ম গ্রহন করে। Fiverr Freelancer Marketplace বা IS বা ইহুদি বা Israel এর তৈরী প্রতিষ্ঠানে যে সকল হজ্জ যাত্রী মুসলিম আছে, সেখান থেকে প্রাপ্ত শিক্ষা (সহজ করে দিচ্ছিঃ পুলসিরাত নামক একটি রাস্তা এর অস্তিত্ব পাবে) যা আল্লাহর পক্ষ হতে নাজিল হয়েছে তা যারা পাবে, তাদের জন্য অপেক্ষা করছে হজ্জ এবং শান্তি ও ইসলাম।

ধন্যবাদ,
মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান শুভ

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

0
    0
    Your Cart
    Your cart is emptyReturn to Shop